Home » মেহেরপুর গাংনীতে অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার, সন্দেহ পরকীয়া প্রেমিকা

মেহেরপুর গাংনীতে অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার, সন্দেহ পরকীয়া প্রেমিকা

কর্তৃক m4BfLuMO2yLhlamiz
354 ভিউস

মেহেরপুর চিত্র
১১/১০/২৩

মেহেরপুরের গাংনীতে অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার, সন্দেহ তীর পরকীয়া প্রেমিকা। মেহেরপুর জেলা
গাংনী উপজেলার কাজীপুর ইউনিয়নের নওদাপাড়া গ্রামের ছাইনদ্দীনের ছেলে নিহত লাল্টুর (৩৫)ছোট ভাই পল্টু হাসেন সাংবাদিকদের জানান, গত ১২ সেপ্টেম্বার থেকে আমার বড় ভাই লাল্টুকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। আমরা পরিবারের পক্ষ থেকে আমাদের আত্মীয়-স্বজনদের বাড়ি খোঁজাখুঁজি করি এত তার খোজ মেলেনি। পরবর্তীতে গাংনী থানায় একটি জিডি করা হয়। আমার ভাই লালটু ইট ভাঙ্গা শ্রমিক হিসাবে কাজ করতেন। তিনি জানান কাজের সুবাদে লাল্টু, পার্শ্ববর্তি হাড়াভাঙ্গা গ্রামে সৌদি প্রবাসী জাহাঙ্গীর হোসেনের স্ত্রী সাবিনা খাতুনের সাথে পরিচয় ঘটে। মাঝে মাঝে লালটু সৌদি প্রবাসী জাহাঙ্গীর হোসেনের বাড়িতে আসা-যা করতেন বলে জানান এলাকা সাধারণ মানুষ।এই আসা যাওয়ার মাঝেই সৌদি প্রবাসী স্ত্রী সাবিনা খাতুনের সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে । এই প্রেমের কথা মানুষের কানাকানি শুরু হয়। গাংনী থানা পুলিশ জানান লালটুর নিখোঁজের প্রেমের সুতো ধরে হাঙ্গাভাঙ্গা গ্রামের সৌদি প্রবাসী জাহাঙ্গীর হোসেনের স্ত্রী সাবিনা খাতুনকে গত কাল প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নেয়া হয় । সাবিনা খাতুন এর স্বীকারোক্তিতে বাড়ির পাশে পরিত্যক্ত ইন্দারা থেকে লাল্টুর অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করে গাংনী থানা পুলিশ। ঘটনান্থল পরিদর্শন করেন গাংনী থানার ওসি তাজুল ইসলাম। গাংনী থানার ওসি সাংবাদিকদের জানান তদন্তে একাধিক টিম মাঠে কাজ করছে। অতি শীঘ্রই আমরা বিষয়টি গণমাধ্যম কর্মীদের বিস্তারিত জানানো হবে। সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন
সাবিনা খাতুনের এখন গাংনী থানা হেফাজতে রয়েছে। হত্যাকাণ্ডের ঘটনার খবর এলাকায় পৌঁছালে স্বজনদের আহাজারিতে এলাকা ভারী হয়ে ওঠে। আশেপাশে গ্রাম থেকে শত শত জনতা
অর্ধগলিত লাশ দেখার জন্য ভিড় জমান।

মেহেরপুর কাথুলী রোড walton শোরুমে, ওয়ালটনের সকল পণ্য সুলভ মূল্যে বিক্রয় করা হয়। ওয়ালটন ফ্রিজ, ফ্যান, রাইস কুকার, প্রেসার কুকার, সহ অনেক পণ্য পাওয়া যাচ্ছে। যোগাযোগের ঠিকানা, মেহেরপুর কাথুলি রোড, মোবাইল নাম্বার ০১৪০৩২৫৭৭৭০- ০১৩০৫৪২৪৬২০

০ মন্তব্য
0

রিলেটেড পোস্ট

মতামত দিন